লাল কদম

বিলুপ্তপ্রায় লাল কদম এবং এর বংশবৃদ্ধি।

বর্ষা এলেই বাংলার প্রায় সবজায়গায় কদমের দেখা পাওয়া যায়। বর্ষার এই কদম ফুল নিয়ে সাহিত্যিকরা অনেক কবিতা লিখে গেছেন। সাদা আর সোনালি মিশ্রণের কদম তো আমরা হরহামেশাই দেখি বর্ষায়। কিন্তু লাল রঙেরও যে কদম আছে এ হয়তো আমাদের অনেকেরই অজানা। কদম মূলত দক্ষিণ এশিয়ার ফুল হলেও লাল কদম শুধু বাংলাদেশ, ভারত দুই জায়গাতেই দেখা যায়। যদিও এখন এই লাল কদম বিলুপ্তপ্রায়। এখন পর্যন্ত জানামতে বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জের পাগলা, গাজীপুরের জয়দেবপুর ও বরিশাল এই তিন জায়গায় বিরল প্রজাতির এই লাল কদম আছে যা প্রকৃতিকভাবে পাওয়া যায়। এছাড়া মানিকগঞ্জে হরিরামপুর নার্সারিতে বানিজ্যিকভাবে উৎপাদন করা হয় এই লাল কদম। হলুদ/সোনালী কদম থেকে লাল কদমের ভিন্নতা শুধু রংয়েই।

কদম গাছের ইংরেজি নাম Burflower tree। এছাড়াও এটি নীপ, সুরভি, বৃত্তপুষ্প, সর্ষপ প্রভৃতি নামেও পরিচিত। লাল কদমের গাছও দেখতে সোনালি কদমের মতোই; দীর্ঘাকৃতি, বহুশাখা বিশিষ্ট। কদমের কান্ড ধূসর, অনেকসময় কালো ও রুক্ষ হয়ে থাকে। পাতা ডিম্বাকৃতির বড়ো বড়ো, তেল চিটচিটে, সবুজ। কদমের একটি মঞ্জরিকে একটি কদম ফুল মনে হলেও তা মূলত অনেকগুলো ফুলের সমাহার। কদম গাছ প্রায় ৪০ বছর বেঁচে থাকে। লাল কদমের বেলায় বৃতি সাদা, দল লাল হয়ে থাকে যেখানে সাধারণ কদমে হলুদ/সোনালী। লাল কদম এর অর্থকরী দিকের বিষয়ে বলতে গেলে এর কাঠ পেন্সিল কোম্পানি, ম্যাচ, কাগজের ফ্যাক্টরিতে ব্যবহার করা যেতে পারে সাধারন কদম গাছের মতোই। এছাড়া এর ছাল জ্বরের উপশম ঘটায়। সচরাচর বীজের মাধ্যমে কদম ফুলের বংশবৃদ্ধি হয় না। একশটি বীজ থেকে মাত্র একটি চারা হতে পারে। কাটিং বা অন্য কোন কৃত্রিম পদ্ধতিতে এর বংশ বৃদ্ধি করার চেষ্টা করা হলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে গাছ মারা যায় এবং বেঁচে থাকা গাছে কদম ফুল ফোটো না। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যানতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. আ ফ ম জামাল উদ্দিনের মতে, একমাত্র ‘গুটি কলম’ এর মাধ্যমেই লাল কদমের বংশবৃদ্ধি করা সম্ভব। অন্য কোন পদ্ধতিতে সৃষ্ট নতুন কদম গাছে লাল ফুল ধরে না। লাল এর পরিবর্তে হলুদ ফুল ধরে। তবে কী কারণে রং পরিবর্তন হয় তা তাঁর জানা নেই। তাই বাংলাদেশে গুটি কলমের মাধ্যমে এই অনিন্দ্য সুন্দর ফুলটির বংশ বিস্তারের চেষ্টা করা হচ্ছে বিভিন্ন নার্সারি এবং শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

শ্রেণীবিন্যাস:
Kingdom: Plantae
Order: Gentianales
Family: Rubiaceae
Subfamily: Cinchonoideae
Tribe: Naucleeae
Genus: Neolamarckia
Species: Neolamarckia cadamba

লাল কদম আলাদা কোনো প্রজাতি নয় বলে এর শ্রেনী বিন্যাস হলুদ/সোনালী কদমের মতোই।

গ্যালারি:

বাঁশবাগানে হাতে ধরে রেখে স্মার্টফোন ক্যামেরায় তোলা লাল কদম (Neolamarckia cadamba)
📸 Asikul Islam Asik
📍 Cumilla, Bangladesh
🗓️ 1 August, 2021

 

স্মার্টফোন ক্যামেরায় তোলা লাল কদম (Neolamarckia cadamba)
📸 Unknown
📍 Narsingdi, Bangladesh
🗓️ 7 July, 2019
সস্পূর্ণ ফুল ফোটেনি এমন অবস্থায় লাল কদম (Neolamarckia cadamba) 📸 Subhankar Poddar 📍 Harirampur, Manikganj, Bangladesh 🗓️ 16 July, 2021
সস্পূর্ণ ফুল ফোটেনি এমন অবস্থায় লাল কদম (Neolamarckia cadamba)
📸 Subhankar Poddar
📍 Harirampur, Manikganj, Bangladesh
🗓️ 16 July, 2021

 

টবে ফোটা লাল কদম (Neolamarckia cadamba)
📸 Shagor Salam
📍 Bogra, Bangladesh
🗓️ 25 July, 2021
নারায়ণগঞ্জের ফারুক আহমেদের বাড়ির বিখ্যাত গাছে লাল কদম। আলো এবং ক্যামেরার জন্য গোলাপী দেখাচ্ছে।
📸 Zahid Chowdhury
📍 Shahi Moholla, Narayanganj, Bangladesh
🗓️ July, 2017

 

তথ্যসূত্র:

AllEscort