মানুষের আত্মার ওজন কি ২১ গ্রাম?

ভূমিকা

ডক্টর ম্যাকডুগাল ১৯০১ সালে একটা পরীক্ষার মাধ্যমে প্রমাণের চেষ্টা করেন যে আত্মার ওজন ২১ গ্রাম। তাছাড়া তিনি এ-ও প্রমাণের চেষ্টা করেন, মানুষের আত্মা আছে, অন্য প্রাণীদের নেই।

১৯০৭ সালের New York Times -এ প্রকাশিত আর্টিকেল
১৯০৭ সালের New York Times -এ প্রকাশিত আর্টিকেল

 

তাঁর পরীক্ষার জন্য দরকার ছিল এমন সব রোগী যাঁরা মৃত্যুর সময় খুব কম নড়াচড়া করবেন। ছয়জন মৃতপ্রায় মানুষ বেছে নেওয়া হয়, তাঁদের মধ্যে চারজন যক্ষ্মা রোগী, একজন ডায়াবেটিসের রোগী, আরেকজন অজানা রোগের। মৃত্যুর আগে আগে এঁদের একটা ওজন মাপার মেশিনে ওঠানো হয়।

মানুষের পরীক্ষার পর তিনি পনেরোটা কুকুরের ওপরও পরীক্ষা চালান। তাঁর পরীক্ষার উপযুক্ত কুকুর তিনি পাননি। ধারণা করা হয়, তিনি কুকুরদের বিষ খাওয়ান।

ফলাফল:

একজন মানুষ মৃত্যুর সময় ২১ গ্রামের মতো ওজন হারান। একজন প্রথমে ওজন হারান কিন্তু পরে তাঁর ওজন বেড়ে যায়। দুজন মৃত্যুর সময় ওজন হারান, কিন্তু পরে আরও বেশি ওজন হারান। এই ডেটা তিনি নিজেই বাদ দেন পরীক্ষার ত্রুটির জন্য।

কুকুরদের তেমন কোনো ওজন হারাতে দেখা যায়নি।

স্বাভাবিক অবস্থায় ঘামের হিসাব বাদ দেওয়া হয়েছে ম্যাকডুগালের পরীক্ষা থেকে। ম্যাকডুগাল যন্ত্রে শুয়ে নিঃশ্বাস ত্যাগ করে দেখেছেন, ওজনের তেমন কোনো হেরফের হয়নি। তাই মৃত্যুর সময় বেরিয়ে যাওয়া বাতাসের ওজন সামান্য ধরা হয়েছে।

ব্যাখ্যা:

ফিজিশিয়ান অগাস্টাস ক্লার্ক ম্যাকডুগালের পরীক্ষার ব্যাখ্যা দেন এরকমভাবে : মৃত্যুর সময় লাংসের কাজ করা বন্ধ হয়ে যায়, ফলে শরীরের কুলিং সিস্টেম ফেইল করে। তাই মৃত্যুর সময় ঘামের পরিমাণ বেড়ে যায়, যেখান থেকে ২১ গ্রামের হিসাব আসে।

কুকুরদের ঘর্মগ্রন্থি না থাকায় তাদের কপালে আত্মা না থাকার অপবাদ জোটে।

তাছাড়াও একেকজনের একেক রকম ডেটা, মাত্র ছয়জনের ওপর এক্সপেরিমেন্ট, তার ওপর দুইটা ডেটা বাদ দেওয়া, এসব কারণে ম্যাকডুগালের এক্সপেরিমেন্ট সায়েন্টিফিক কমিউনিটির কাছে গ্রহণযোগ্য হয়নি।

তথ্যসুত্র:

https://www.snopes.com/fact-check/weight-of-the-soul/

https://en.wikipedia.org/wiki/21_grams_experiment

http://rationallyspeaking.blogspot.com/2007/03/does-soul-weigh-21-grams.html

AllEscort